711 বার প্রদর্শিত
"চুলের যত্ন" বিভাগে করেছেন

যন্ত্রণাদায়ক উকুন মারার নয়টি ঘরোয়া পদ্ধতি জানতে চাই ?

উকুন মারার নয়টি ঘরোয়া পদ্ধতি

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন

যন্ত্রণাদায়ক উকুন মারার নয়টি ঘরোয়া পদ্ধতি

উকুন’ নামটাই যেন আমাদের কাছে একটি বিরক্তির কারণ। এই নামটি শুনলেই আমাদের ঘৃণা লাগে। ৮ থেকে ৮০ সকলের মাথায় হতে পারে উকুন। অপরিচ্ছন্নতা উকুন হওয়ার প্রধান কারণ। তবে এছাড়াও নানা কারণে আমাদের মাথায় উকুন হতে পারে। যেমন – ভেজা চুল বাঁধা থাকলে, অন্যের চিরুনি, টাওয়েল, গামছা ব্যবহার করলে চুলে উকুন হতে পারে। কারণ উকুন মানুষের চামড়ায় বাস করে এবং রক্ত খেয়ে বেঁচে থাকে। সাধারণত একজনের মাথা থেকে অন্যজনের মাথায় উকুন ছড়িয়ে পড়ে। তাই যার মাথায় উকুন দেখা যায় তাকে সকলে এড়িয়ে চলে।

তাই ঘরোয়া উপায়ে উকুন দূর করার কিছু টিপস রইল –

মেয়নিজ: 

মেয়নিজ আমাদের খুব প্রিয় একটা খাবার জিনিস। কিন্তু, আপনি কি জানেন মেয়নিজ উকুন দূর করার এক মোক্ষম দাওয়াই। মাথার তালুতে খানিকটা মেয়নিজ লাগিয়ে নিন। এবার একটি প্লাস্টিক দিয়ে চুল জড়িয়ে রাখুন। এভাবে ৬ ঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু করে ফেলুন। মেয়নিজের গন্ধে উকুন মরে যাবে।

বাদাম তেল: 

বাদাম তেল বা অলিভ অয়েলের গন্ধ উকুন সহ্য করতে পারে না। তাই পরিমান মতো চুলে বাদাম তেল বা অলিভ অয়েল লাগিয়ে নিন। কিছুক্ষণ বাদে চিরুনি দিয়ে আস্তে আস্তে চুল আঁচড়ে নিন। খুব সহজে মরা উকুনগুলি মাথা থেকে চলে যাবে। এরপর শ্যাম্পু করে ফেলুন। সপ্তাহে একবার এই তেল লাগালে উকুন থাকবে না।

নারিকেল তেল: 

উকুন দূর করার একটি ভালো উপায় হল নারকেল তেল। ৩ টেবিল চামচ নারকেল তেল এবং সামান্য কর্পূর ভালো করে মিশিয়ে নিন। এবার এই তেলটি মাথায় লাগিয়ে ভালো করে ম্যাসাজ করুন। এরপর একটি প্লাস্টিক দিয়ে মাথা ঢেকে রাখুন। পরের দিন সকালে শ্যাম্পু করে নিন। চুল শুকিয়ে গেলে চিরুনি দিয়ে আঁচড়ে নিন। সপ্তাহে ৩ থেকে ৫ দিন করুন। দেখবেন উকুন চলে গেছে।

লেবুর রস: 

লেবুর রস উকুন দূর করে।প্রথমে একটি পাতিলেবু নিন। এবার সেই লেবু থেকে পুরো রসটা ভালো করে বের করে নিন। ভালো করে চামড়ায় লাগিয়ে নিন। ৩ থেকে ৫ মিনিট পর প্রথমে ভিনেগার দিয়ে এবং পরে হালকা গরম জল দিয়ে চুলে শ্যাম্পু করে ফেলুন।

আদার পেস্ট: 

উকুন মারার জন্য আদার পেস্ট ব্যবহার করা যেতে পারে। একটি লেবুর রসের সঙ্গে খানিকটা আদার পেস্ট মিশিয়ে নিন। এবার এটি মাথায় ভাল করে ম্যাসাজ করুন। একটি তোয়ালে দিয়ে খানিকক্ষণ মাথা পেঁচিয়ে রাখবার পর এরপর শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে ২ থেকে ৩ বার করুন। উকুন চলে যাবে।

নিম: 

উকুন দূর করতে নিমের থেকে ভালো কিছু হয় না। এটি প্রাকৃতিক প্রতিষেধক। নিমের পেস্ট তৈরি করে তা দিয়ে চামড়ায় ম্যাসাজ করুন। সপ্তাহে ২ বার ব্যবহার করুন। এছাড়া নিমের তেলও ব্যবহার করতে পারেন। এক ঘণ্টা রেখে চুল শ্যাম্পু করে ফেলুন।

রসুন:

 রসুনের গন্ধে উকুন পালায়। ১০টি রসুনের কোয়া নিন। এবার এর একটি পেস্ট করে নিন। এরসঙ্গে ২ থেকে ৩ চা চামচ লেবুর রস মেশান। এই পেস্টটি স্ক্যাল্পে লাগিয়ে আধ ঘণ্টার পর হালকা গরম জল দিয়ে শ্যাম্পু করে ফেলুন।

টি ট্রি অয়েল: 

শ্যাম্পুর সঙ্গে ৩ থেকে ৫ ফোঁটা টি ট্রি অয়েল মিশিয়ে নিন। এটি দিয়ে চুলে শ্যাম্পু করে ফেলুন। চুলে শুকিয়ে গেলে চুল আঁচড়ে নিন। দেখবেন চুল থেকে উকুন চলে গেছে। এটি ২ মাস ব্যবহার করুন।

পেঁয়াজ: 

পেঁয়াজের রসে সালফার থাকে। যা উকুন দূর করতে সাহায্য করে। ৪ থেকে ৫ টি পেঁয়াজ নিন। এবার এটি থেঁতো করে এর থেকে রস বের করুন। এরপর তা মাথায় ম্যাসাজ করুন। ২ ঘণ্টা বাদে গরম জল দিয়ে শ্যাম্পু করে নিন। চুল শুকোনোর পর চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ান। উকুন চলে যাবে।

আপনার বিভিন্ন সমস্যার সমাধান বা অজানা উত্তরের জন্য বিনামূল্যে আমাদের প্রশ্ন করতে পারবেন। প্রশ্ন করতে দয়া করে প্রবেশ, কিংবা নিবন্ধন করুন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি উত্তর

8.8k টি প্রশ্ন

6.8k টি উত্তর

244 টি মন্তব্য

768 জন সদস্য

প্রশ্ন করুন
ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ সুস্বাগতম, এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন, বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, কোনভাবেই ক্যোয়ারী অ্যানসারস দায়বদ্ধ নয়।
...