758 বার প্রদর্শিত
"স্বাস্থ্য টিপস" বিভাগে করেছেন

 যে ৬ কারণে পেটে মেদ বাড়ে এস কারন গুলো জানতে চাই

জেনে নিন যে ৬ কারণে পেটে মেদ বাড়ে

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন

জেনে নিন যে ৬ কারণে পেটে মেদ বাড়ে…

যে ৬ কারণে পেটে মেদ বাড়ে- মানুষের শরীরে সব থেকে তাড়াতাড়ি মেদ জমে পেটে। পেটের নানা অঙ্গের চারিপাশে এই ‘ফ্যাট’ জমে, যার থেকে বিভিন্ন রোগের সৃষ্টি হয়।

ডায়াবেটিস, হার্টের সমস্যা, রক্তচাপের মতো রোগের সূত্র পেটের এই মেদ থেকেই। যাকে সাধারণ ভাবে বলা হয় ‘বেলি ফ্যাট’।

শুধু খাওয়া-দাওয়াই নয়, ‘বেলি ফ্যাট’ হতে পারে আরও নানা কারণে। একনজরে দেখে নেয়া যাক-

১. দিন ভর ঘোরাফেরা করে, অনেক সময় কাজের ফাঁকে কিছু-না-কিছু খাওয়া হয়। কিন্তু এই খাবারগুলি মুখরোচক স্ন্যাক্স হলেই গন্ডোগোল। ফাস্ট ফুড খেতে ভাল হলেও স্বাস্থ্যের জন্য একেবারেই ঠিক নয়।

এর বদলে আপনি যদি ফল বা স্যালাড খাওয়া যায়, এতে করে বেশ উপকার হবে।

২. নিয়মিত দই খাওয়ার অভ্যাস করুন আপনি। কেননা, এতে যে ‘গুড ব্যাক্টেরিয়া’ থাকে, তা আপনার হজমে খুবই সাহায্য করে। ফলে পেটে মেদ বাড়ার কোনো সুযোগ নেই।

৩. পিপাশা পেলে অনেকেই সফট ড্রিঙ্কস পান করে থাকেন। এতে অধিক ক্যালোরি রয়েছে যা কিনা শরীরে মেদ বাড়িয়ে দেয়।

৪. করনেল ইউনিভারসিটির বিশেষজ্ঞদের মতে, নেগেটিভ ইমোশান থাকলে বেশি খাওয়ার প্রবণতা হয়। যা শরীরে পক্ষে খুবই ক্ষতিকারক।

৫. চিকন হতে গিয়ে অনেকেই খাওয়া-দাওয়া অনেকখানি কমিয়ে দেয়। এ বিষয়ে চিকিৎসকদের মতে, খাবার-দাবারের পরিমাণ কমালে সমস্যা নেই।

তবে বেশিক্ষণ না খেয়ে থাকলেও পেটে মেদ জমে।

৬. অফিস কিংবা বাসায় অথবা অন্য কোনো কাজ করার সময় এক ভাবে অনেক সময় ধরে বসে থাকলেও পেটের চর্বি বেড়ে যায়।

এ ব্যাপারে বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রতি এক-দেড় ঘণ্টা অন্তর অন্তর নিজের সিট থেকে উঠে খানিক হাঁটাচলা করা উচিত।


আপনার বিভিন্ন সমস্যার সমাধান বা অজানা উত্তরের জন্য বিনামূল্যে আমাদের প্রশ্ন করতে পারবেন। প্রশ্ন করতে দয়া করে প্রবেশ, কিংবা নিবন্ধন করুন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

8.8k টি প্রশ্ন

6.8k টি উত্তর

244 টি মন্তব্য

769 জন সদস্য

প্রশ্ন করুন
ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ সুস্বাগতম, এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন, বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, কোনভাবেই ক্যোয়ারী অ্যানসারস দায়বদ্ধ নয়।
...